শাক্ত পদাবলীর প্রশ্নোত্তর

West Bengal

শাক্ত পদাবলীর প্রশ্নোত্তর। শাক্ত পদাবলীর প্রশ্ন নিয়ে এখানে আলোচনা করা হয়েছে। এই প্রশ্নগুলি শাক্তপদাবলী কে ভালো করে জানার জন্য বোঝার জন্য খুবই প্রয়োজন।

১) শাক্তপদ কাকে বলে?

অষ্টাদশ শতাব্দীতে সপ্তপদী অভিনব রূপান্তর হয়। আদ্যাশক্তিকে দুর্গারূপে ভক্তিবাৎসল্যের দৃষ্টিতে দেখে একপ্রকার চমৎকার পদ রচিত হয়, তাই শাক্ত পদ।

২) সাধক কমলাকান্ত প্রথমে কি বই লিখেন?

বাংলাতে ‘সাধক রঞ্জন’ নামে তন্ত্র সাধনার বই।

৩) রামপ্রসাদ কি কি কাব্য লেখেন?

কালী কীর্তন ও কৃষ্ণ কীর্তন নামে ছোট কাব্য লেখেন।

bangla practice question paper

৪) কোন আধুনিক কবি শ্যামা সংগীত লিখে বিখ্যাত হন?

কবি কাজী নজরুল ইসলাম

৫) শাক্ত পদাবলীর অন্য নাম কি ও কেন?

‘প্রসাদী সংগীত’। জনপ্রিয় কবি সাধক রামপ্রসাদের জনপ্রিয়তাতে শাক্তপদ মাত্রেই প্রসাদী সঙ্গীত নামে খ্যাত।

৬) আগমনী বিজয়া কি?

শরৎকালে দেবীর হিমালয় ছেড়ে এই বঙ্গভূমি বাপের বাড়িতে আসার আশায় গানই আগমনী।

বিজায়দেবীর তিন দিনের পর কৈলাসে ফিরে যাওয়ার জন্য মা মেনকার দীর্ঘশ্বাসের কাহিনীই বিজয়া-সঙ্গীত হিসেবে খ্যাত।

৭) কমলাকান্তের জন্ম স্থান কোথায়? মৃত্যু কবে?

বর্ধমান জেলার কালনা গ্রামে। তার জীবনের সন তারিখ সম্বন্ধে জানা যায় না। উনবিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়-তৃতীয় দশকের প্রায় 55 বছর বয়সে তিনি দেহত্যাগ করেন।

৮) শাক্ত পদকর্তা রামপ্রসাদ সেনের জন্ম সন কবে?

ঈশ্বর গুপ্তের তথ্যানুযায়ী ১৯২০- ২১ খ্রিস্টাব্দে হালিশহরে জন্ম ও মৃত্যু ১৭৮১ খ্রিস্টাব্দে।

৯) বৈষ্ণব পদাবলী ও শাক্ত পদাবলীর পার্থক্য কোথায়?

বৈষ্ণব পদাবলী ভাববৃন্দাবনের অনুষ্ঠিত অপ্রাকৃত রাধাকৃষ্ণের সূক্ষ্মরসোত্তীর্ণ প্রেমগীতিকা। শাক্ত পদাবলী বাস্তব বাংলাদেশের বাস্তব মায়ের বেদনা গান। শাক্ত পদাবলীর মূলরস বাৎসল্যভাব, বৈষ্ণব পদাবলীর মূলরস শৃঙ্গার বা মধুর রস।

১০) রামপ্রসাদ ও কমলাকান্ত ছাড়া আর কয়েকজনের নাম লিখুন।

রাজা কৃষ্ণচন্দ্রের পুত্র শম্ভুচন্দ্র, কুমার নরচন্দ্র, দেওয়ান রামদুলাল নন্দী, নীলাম্বর মুখোপাধ্যায়, রামদুলাল ইত্যাদি।

Leave a Reply