মানকর কলেজ জাতীয় স্তরের আলোচনা সভা রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টি ও নির্মাণ : কাল থেকে কালান্তরে

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে

জাতীয় স্তরের আলোচনা সভা

রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টি ও নির্মাণ : কাল থেকে কালান্তরে

আয়োজক

বাংলা বিভাগ

(স্নাতক ও স্নাতকোত্তর)

মানকর কলেজ

মানকর, পূর্ব বর্ধমান ৭১৩১৪৪

পশ্চিমবঙ্গ

মানকর কলেজ

মানকর কলেজের বাংলা বিভাগ আগামী ০৬ মে ২০২২ একটি একদিবসীয় জাতীয় স্তরের আলোচনা সভার আয়োজন করতে চলেছে। বিষয় “রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টি ও নির্মাণ কাল থেকে কালান্তরে”। এই আলোচনা সভায় আপনাদের সক্রিয় উপস্থিতি একান্তভাবে কামনা করি। পাশাপাশি অধ্যাপক, গবেষকদের কাছ থেকে উক্ত আলোচনা সভায় গবেষণামূলক নিবন্ধ আহ্বান করা হচ্ছে।

রবীন্দ্রনাথ বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির সর্বজনবেদ্য ভগীরথ। কিন্তু তা সত্ত্বেও রবীন্দ্রনাথের জন্ম জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে বলেই সম্ভবত তাঁকে জনবিমুখ ঐশ্বর্যবিলাসী মনে করেছেন অনেকে। এ রকম ধারণার একমাত্র কারণ অপরিচয়।

যারা তাঁর জীবনের ও সাহিত্যের সংস্পর্শে এসেছেন তাঁরা জানেন ভোগাড়ম্বরকে তিনি চিরদিন অশ্রদ্ধা করেছেন এবং জনসেবা ছিল তাঁর জীবনের ব্রত। রবীন্দ্রনাথের শিক্ষাভাবনার মূলে ছিল আনন্দের ধারণা। যে শিক্ষা কাঠামোয় কঠিন শাসনের পরিবর্তে ছিল উদারতার আবহ।

রবীন্দ্রনাথ দেশপ্রেমে স্নাত ছিলেন, তবে কোনোভাবেই সংকীর্ণ জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী ছিলেন না। তাঁর মানব ভাবনার মূলে ছিল অসাম্প্রদায়িক বিশ্ব নাগরিকের সুদৃঢ় অবস্থান। রাষ্ট্রীয় আন্দোলনে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। কেবল ভাবোন্মাদ দেশের মুক্তি আনতে পারবে না বলেই শহরের বক্তৃতামঞ্চ থেকে দূরে পল্লীভূমিতে তিনি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

জাতিগঠনের ভিত্তি। ভাবে ও কর্মে জনগণের অকৃত্রিম সুহৃদ ছিলেন তিনি। রবীন্দ্র সংস্কৃতি সমগ্র মানবজাতির এক পরম সম্পদ। রবীন্দ্রনাথের নিজের দেশের মানুষকে যত বেশি দিন সেই সংস্কৃতির যোগ থেকে বঞ্চিত করে রাখা হবে, বিদেশের প্রবুদ্ধ জনগণের কাছে এ দেশের মানুষকে ততই নিচু হয়ে থাকতে হবে।

ধন্যবাদান্তে

অধ্যাপক (ড.) সুকান্ত ভট্টাচাৰ্য্য

মানকর কলেজ

আলোচনা সভার বিষয় প্রসঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

* গবেষণাপত্রের সংক্ষিপ্তসার (অনধিক ১০০ শব্দ) জমা দেওয়ার শেষ তারিখ- ০৩/০৫/২০২২

* পূর্ণাঙ্গ গবেষণাপত্র (অনধিক ২০০০ শব্দ) জন্য দেওয়ার শেষ তারিখ- ০৪/০৫/২০২২

● লেখা পাঠানোর ঠিকানা – [email protected] • উল্লিখিত ঠিকানায় গবেষণাপত্রের সংক্ষিপ্তসার ও পূর্ণাঙ্গ গবেষণাপত্র ‘অভ্র সফটওয়্যারে টাইপ করে মাইক্রোসফট

ওয়ার্ড এবং পিডিএফ আকারে পাঠাতে হবে।

• ফন্ট সাইজ ১৪ (শিরোনাম) ও ১২ (মূল লেখা), লাইন স্পেসিং ১.৫, পেপার সাইজ A4.

• গবেষণাপত্রের শেষে গবেষকের নাম, পরিচয়, ই-মেল আইডি, মোবাইল নম্বর ও ঠিকানা থাকা আবশ্যিক। * কোনো চিত্র বা তদনুরূপ তথ্যের ক্ষেত্রে যথাযথ উৎস নির্দেশ করতে হবে।

* গবেষণাপত্র পাঠের জন্য নির্বাচিত হলে ই-মেল মারফৎ ০৫/০৫/২০২২-এর মধ্যে জানিয়ে দেওয়া হবে।

• আলোচনা সভায় উপস্থাপিত এবং নির্বাচিত গবেষণাপত্র পরবর্তীকালে আইএসবিএন (ISBN) সংকলনগ্রন্থরূপে প্রকাশের পরিকল্পনা আছে।

● নির্ধারিত অনুদান

অধ্যাপক/শিক্ষক ও গবেষক ১০০০ টাকা (গবেষণাপত্র উপস্থাপনকারী) অধ্যাপক/শিক্ষক ও গবেষক ৫০০ টাকা (সাধারণ অংশগ্রহণকারী)

মানকর কলেজের ছাত্রছাত্রী ১০০ টাকা

● আলোচনা সভায় অংশগ্রহণের রেজিঃ – https://forms.gle/nWPrC6dgwLyhl2c87.

● আলোচনা সভায় অংশগ্রহণকারীদের পেমেন্ট লিঙ্ক –

Name-Dibyenu Patar

UPI Handle-9593088135@paytm Pay me on Paytm https://p.paytm.me/xCTH/hgx/wa00

অধ্যাপক (ড.) সুমন গুণ

অধ্যাপক, ভারতীয় তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগ

আসাম বিশ্ববিদ্যালয়

শিলচর, আসাম

অধ্যাপক (ড.) রজত কিশোর দে

অধ্যাপক

বাংলা বিভাগ

গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় মালদা, পশ্চিমবঙ্গ

ড. শ্রাবণী বসু

সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান

বাংলা বিভাগ

বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়

পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিমবঙ্গ

উদ্বোধনী অধিবেশন )

> সকাল ০৯.০০– ১০.০০ আলোচনাসভায় অংশগ্রহণকারীদের নিবন্ধিকরণ।

> সকাল ১০.০০১০.১০ রবীন্দ্রনাথের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ।

> সকাল ১০.১০১০.১৫ অতিথিদের সম্বর্ধনা জ্ঞাপন ।

> সকাল ১০.১৫-১০.২০ উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন।

> সকাল ১০.২০ – ১০.৩০ – স্বাগত ভাষণ ।

(অধ্যাপক ড. সুকান্ত ভট্টাচার্য, অধ্যক্ষ, মানকর কলেজ)

> বেলা ১০.৩০ বেলা ১১.১৫ সূচক ভাষণ

(অধ্যাপক সুমন গুণ, ভারতীয় তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগ, আসাম বিশ্ববিদ্যালয়, শিলচর)

( বিশেষ বিদ্যায়তনিক অধিবেশন // সময়: ১১.৩০ – ০১.০০ মিনিট)

সভাপতি অধ্যাপক সুমন গুণ (ভারতীয় তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগ, আসাম বিশ্ববিদ্যালয়, শিবচর) আলোচক ।। অধ্যাপক রজত কিশোর দে (বাংলা বিভাগ, গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়, মালদা, পশ্চিমবঙ্গ) আলোচক ।। ড. শ্রাবণী বসু (বাংলা বিভাগ, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিমবঙ্গ)

( মধ্যাহ্ন ভোজন বিরতি // সময় ০১.০০ – ০১.৩০ মিনিট)

( সমান্তরাল বিদ্যায়তনিক অধিবেশন গবেষণাপত্র উপস্থাপন // সময়: ০১.৩০০৩.০০ মিনিট)

১// সভাপতি অধ্যাপক সুমন গুণ (ভারতীয় তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগ, আসাম বিশ্ববিদ্যালয়, শিলচর) কক্ষ ২ // সভাপতি অধ্যাপক রজত কিশোর দে (বাংলা বিভাগ, গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়, মালদা, পশ্চিমবঙ্গ) কক্ষ ৩ // সভাপতি- ড. শ্রাবণী বসু (বাংলা বিভাগ, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়, পশ্চিমবঙ্গ)

(সমাপ্তি অধিবেশন)

● 05.00০৩.১০ মিনিট ধন্যবাদ জ্ঞাপন অবজাগীয় প্রধান, বাংলা বিভাগ, মানকর কলেজ)

মানকর কলেজে আসার নির্দেশিকা :

GOOGLE LOCATION: https://goo.gl/maps/Dibxid2VF7oevkyb6

বর্ধমান বা আসানসোল রেলস্টেশন থেকে প্যাসেঞ্জার/লোকাল/ এক্সপ্রেস ট্রেনে সরাসরি মানকর রেলস্টেশনে আসা যায় রেলস্টেশন থেকে বেরিয়ে সাইকেল রিক্সা/ব্যাটারিচালিত রিক্সা/বাসে করে মানকর কলেজ ১০ মিনিটের পথ। পায়ে হেঁটেও কলেজ আসা যায়। সময় লাগবে আনুমানিক ২০ মিনিট।

> বর্ধমান রেলস্টেশন থেকে উল্লেখযোগ্য ট্রেনের সময় –

সকাল ০৭.৩০ মিনিট (প্যাসেঞ্জার)

সকাল ০৭.৫৭ মিনিট (ব্ল্যাক ডায়মন্ড সুপারফাস্ট )

সকাল ০৮.৪০ মিনিট (লোকাল)

সকাল ০৯.৫০ মিনিট (লোকাল)

> আসানসোল রেলস্টেশন থেকে উল্লেখযোগ্য ট্রেনের সময় –

সকাল ০৭.০৩ মিনিট (কোল্ডফিল্ড সুপারফাস্ট )

সকাল ০৭.৪২ মিনিট (লোকাল) সকাল ০৯.০০ মিনিট (লোকাল)

বর্ধমান থেকে আসানসোলের মধ্যে প্রায় সারাদিন নিয়মিত বাস চলাচল করে (ভায়া বুদবুদ-মানকর স্টেশন-মানকর হাটতলা)।

: কমিটি :

* প্রধান উপদেষ্টা

* আহ্বায়ক – ড. অরিজিৎ ভট্টাচার্য

(সহকারী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান, বাংলা বিভাগ, মানকর কলেজ)

অধ্যাপক (ড.) সুকান্ত ভট্টাচাৰ্য্য (অধ্যক্ষ, মানকর কলেজ)

* যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক

ড. প্রবীর কুমার পাল ও ড. অরিন্দম অধিকারী

(সহকারী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ, মানকর কলেজ)

* সদস্য কাজল রায়, সেখ মেহের আবদুল্লাহ, বনশ্রী দত্ত ও প্রতিম দত্ত (স্টেট এডেড কলেজ টিচার্স, বাংলা বিভাগ, মানকর কলেজ )

* সহযোগিতায় মানকর কলেজের সকল অধ্যাপক অধ্যাপিকা, শিক্ষাকর্মী ও ছাত্রছাত্রীবৃন্দ।

যোগাযোগ (সকাল ১০ টা থেকে রাত্রি ৯ টা) –

ড. অরিজিৎ ভট্টাচার্য (১৮০৬০৯২৯১৪)

ড. ধনীর কুমার পাল (৯১৫০০০৪২১৬)

. অরিন্দম অধিকারী (৯৬১৪০৫১৯২৮)

Leave a Reply

Your email address will not be published.